আসছে বছরের সবচেয়ে আলোচিত প্রযুক্তির আসর, কনজিউমার ইলেকট্রনিক্স শো (সিইএস)

সিইএস

আরেকটি বছর শেষ হতে চলেছে। তথ্য-প্রযুক্তি নিয়ে নানা মাতামাতি শেষে আবারও আমরা আরেকটি নতুন বছরের দ্বারপ্রান্তে চলে এসেছি। আর প্রযুক্তির জগতে নতুন বছর মানেই নতুন নতুন সব পণ্য আর প্রযুক্তির ছড়াছড়ি। প্রতি বছর জানুয়ারি মাসেই প্রযুক্তি বিশ্বে কী ঘটতে যাচ্ছে তার ‘ট্রেইলার’ দেখতে পান প্রযুক্তিপ্রেমীরা। এবারও তার ব্যতিক্রম হচ্ছে না। জানুয়ারির সঙ্গে সঙ্গেই দিন ঘনিয়ে আসছে ২০১৫ সালের প্রযুক্তি আসর, কনজিউমার ইলেকট্রনিক্স শো — সিইএস ২০১৫।

প্রযুক্তি পণ্য বিক্রেতা প্রতিষ্ঠানরা বছরের শুরুটাই করেন জাঁকজমকপূর্ণ এই আয়োজনের মধ্য দিয়ে। সিইএস-এ বছরের প্রায় মাঝামাঝি পর্যন্ত যেসব প্রযুক্তি পণ্য বাজারে আসতে যাচ্ছে, তার সবগুলোরই প্রদর্শনী চলে। এই প্রদর্শনী কোনো বেচাকেনার নয়, বরং বিশ্বকে দেখানো বছরব্যাপী কী সব পণ্য নিয়ে বিশ্ব আলোচনায় ব্যস্ত থাকবে।

এবারের কনজিউমার ইলেকট্রনিক্স শো ৬-৯ই জানুয়ারি, যুক্তরাষ্ট্রের লাস ভেগাসে অনুষ্ঠিত হবে।

প্রযুক্তি পণ্যের বাজারের একটি বড় অংশ দখল করে রেখেছে স্মার্টফোন আর ট্যাবলেট। মোবাইল ফোন অনেক আগে থেকেই মানুষের আগ্রহের পণ্য থাকলেও সাম্প্রতিক বছরগুলোতে ফোন নিয়ে মানুষের আগ্রহ ও প্রত্যাশা সকল সীমা ছাড়িয়েছে। যখনই আপনি ভাববেন এই বুঝি মোবাইল ফোনের ক্ষমতার শেষ প্রান্ত, তখনই অন্য কোনো কোম্পানি আরও অভাবনীয় কোনো প্রযুক্তি নিয়ে তাদের ফোনের ঘোষণা দিয়ে বসবেন। মোবাইল ফোন ‘স্মার্টফোন‘-এ রূপান্তরিত হওয়ার পর স্মার্টফোনের বাজার অবিশ্বাস্য রকমের চাঙ্গা হয়ে উঠেছে, যা নিয়ে বলার কিছু নেই।

স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট — এ দু’টো বাজার চাঙ্গা করে তোলার পেছনে অ্যাপলের অবদান থাকলেও, পরবর্তীতে সবার হাতের নাগালে এসব ডিভাইস পৌঁছে দেয়ার ব্যবস্থা করে দিয়েছে অ্যান্ড্রয়েড। বর্তমানে ট্যাবলেট ও স্মার্টফোন — দু’টোর বাজারেই তুলনামূলক এগিয়ে রয়েছে অ্যান্ড্রয়েড। নতুন নতুন ডিভাইস বাজারে আসছে যার সিংহভাগই চলছে গুগলের অ্যান্ড্রয়েড অপারেটিং সিস্টেমে। আর তাই সিইএস মানেই বিশ্বের প্রায় সব কোম্পানির নতুন নতুন স্মার্টফোন ও ট্যাবলেটের আসর, যেসব ডিভাইসের অধিকাংশই চলবে অ্যান্ড্রয়েডে।

তাই আগামী বছরের সিইএস আসরের অ্যান্ড্রয়েড-চালিত নতুন নতুন সব ডিভাইসের আপডেট দিতে প্রস্তুত আমরাও। বেশ অনেকদিন স্থগিত থাকার পর আমরা আবারও প্রস্তুত মান সম্পন্ন অ্যান্ড্রয়েড বিষয়ক সংবাদ, সংবাদ বিশ্লেষণ, মতামত ও রিভিউ নিয়ে। ফেসবুকে আমাদের সঙ্গেই থাকুন, ফলো করুন টুইটারে, গুগল প্লাসে, কিংবা নিচের ঘরে আপনার ইমেইল ঠিকানা লিখে নতুন পোস্ট প্রকাশিত হওয়ামাত্রই ইমেইল পেতে গ্রাহকত্ব গ্রহণ করুন।

Subscribe to Blog via Email

Enter your email address to subscribe to this blog and receive notifications of new posts by email.

আর হ্যাঁ, নতুন বছরের শুরুতে একঝাঁক স্মার্টফোন ও ট্যাবলেট ডিভাইসকে স্বাগত জানাতে প্রস্তুত থাকুন।

  • arshad

    সত্যি বলতে, নতুন নতুন স্মার্টফোন কিনতে কিনতে ফতুর হওয়ার যোগাড়।

    • কোম্পানিগুলো তো সেটাই চায়। 😉

      • arshad

        আমার ধারনা, মোবাইল ডিভাইস গুলোতে ন্যানো টেকনোলজির সত্যিকার প্রয়োগ যখন শুরু হবে- মাথা ঘুরিয়ে দেওয়ার মত ব্যাপার হবে সেটা। ১২৮ জিবির এসডি কার্ড এখনি স্মার্ট ফোনে ব্যবহার করা যাচ্ছে। এটা এখন আর বিশেষ কিছু মনে হয়না আর। অথচ আগে ডেস্কটপ পিসির সাকুল্যে হার্ড ডিস্কের ক্ষমতাই ছিলো ১২৮ জিবি।

        • দিব্য

          ২০০৪ এ কেনা আমার পিসির হার্ডডিস্ক ছিলো ১২৮gb.

          ram ছিলো ২৫৬mb 😛