‘এক্স’ কোনো অজানা রাশি নয়

নোকিয়া এক্স

আপডেট: ঘোষণা এসেছে নোকিয়া অ্যান্ড্রয়েডের; পরিচিত হয়ে নিন নোকিয়ার অ্যান্ড্রয়েড পরিবারের সঙ্গে

বছরের পর বছর কেটে গেলো, কিন্তু এক সময়ের সেরা ফোন নির্মাতারা তাদের লক্ষাধিক ভক্তের কোনো কথাই রাখলো না। যখন কর্তৃত্বটা অন্যের হাতে চলে যাওয়ার মুহূর্ত সন্নিকটে, তখনই যেন হঠাৎ তাদের হুঁশ হলো। বোধহয় তারা ভাবলো, ‘যাচ্ছিই যখন, ভক্তদের একটি উপহার দিয়েই যাই’।

আর নোকিয়া ফ্যানদের জন্য সেই উপহারের নাম ‘এক্স’।

কী এই নরম্যান্ডি

অ্যান্ড্রয়েড নিয়ে বিন্দুমাত্রও আগ্রহ থাকলে নোকিয়া নরম্যান্ডির কথা কারোরই অজানা থাকার কথা নয়। অ্যান্ড্রয়েডের জনপ্রিয়তা যখন আকাশ ছুঁই ছুঁই করছে আর নোকিয়া তাদের উইন্ডোজ ফোন সিরিজ নিয়ে ততোটা শক্তিশালী অবস্থানে আসতে পারছে না, তখন প্রায় সবার মুখে মুখেই ছিল একটা কথা: অ্যান্ড্রয়েড আনলে বাজারের সেরা ফোন নির্মাতা কোম্পানি হতে পারতো নোকিয়া। কিন্তু নোকিয়া অ্যান্ড্রয়েড ফোন সবসময়ই ভক্তদের মনের ইচ্ছেতেই সীমাবদ্ধ থেকে গেছে।

কিন্তু তাই বলে নোকিয়া নিজেও যে অ্যান্ড্রয়েড ফোন নিয়ে পরীক্ষা চালায়নি তা নয়। অভ্যন্তরীণভাবে নোকিয়া অ্যান্ড্রয়েড নিয়ে পরীক্ষা অব্যাহত রেখেছে। তবে উইন্ডোজ ফোনের জগতে নিজেদের একচ্ছত্র অধিপত্য ছেড়ে অ্যান্ড্রয়েডে যেতে চায়নি। কেন চায়নি, সেই লম্বা কাহিনী না হয় পুনরাবৃত্তি না-ই হলো। অ্যান্ড্রয়েড ভক্তরাও রীতিমতো নোকিয়ার ‘নির্বুদ্ধিতায়’ জ্বালাময়ী প্রচুর ফোরাম কমেন্ট আর ব্লগ পোস্ট লিখেছেন। কিন্তু কিছুতেই কিছু হয়নি। লুমিয়া সিরিজে উইন্ডোজ ফোন নিয়েই স্মার্টফোন জগতে নিজেদের পরিচিতি ধরে রাখার চেষ্টা করেছে নোকিয়া।

উইন্ডোজ ফোনকে আঁকড়ে ধরে রাখতে গিয়ে নোকিয়া যে ডুবে গেছে তেমনটা বলা যাবে না, তবে নিঃসন্দেহে লুমিয়ার ডিজাইনে অ্যান্ড্রয়েড ফোন তৈরি করতে পারলে নোকিয়ার বাজারটা আরও বড় হয়ে উঠতো। হয়তো ফিচার ফোনে নোকিয়ার যে রাজত্ব ছিল, স্মার্টফোনেও স্যামসাংকে পেছনে ফেলতে না পারলেও দ্বিতীয় অবস্থানে থাকতো নোকিয়া।

নোকিয়া এক্স

এমনই অনেক অনুশোচনা হয়তো নোকিয়ারও রয়েছে। কিন্তু নানা মারপ্যাঁচে কখনোই অ্যান্ড্রয়েড ফোন বের করেনি তারা। কিন্তু এবার নোকিয়ার স্মার্টফোন ডিভিশন চলে যাচ্ছে মাইক্রোসফটের অধীনে। আর মাইক্রোসফট হলো উইন্ডোজ ফোনের নির্মাতা। মাইক্রোসফট তাদের অধীনে থেকে অ্যান্ড্রয়েড ফোন বের করবে না এই ভবিষ্যত বাণী করতে জ্যোতিষী হতে হয় না।

মাইক্রোসফটকে কাঁচকলা

নোকিয়া-মাইক্রোসফট চুক্তির খবর প্রকাশের পর নোকিয়াপ্রেমীদের হায়-হায়টা ছিল দেখার মতো। কিন্তু এই ভক্তদের অনেকেই হয়তো জানেন না যে, করপোরেট দুনিয়ায় এসব চুক্তি কার্যকর হতে বেশ অনেকটা সময় লেগে যায়। গুগলের মটোরোলা মোবিলিটি কিনে নেয়ার বিষয়টাই মনে করে দেখুন। কিনে নেয়ার প্রায় দেড় বছর পর গুগল-মটোরোলার যৌথ উদ্যোগে প্রথম ফোন ‘মটো এক্স’ বাজারে আসে। কেন এতোদিন দেরি করা হলো? কারণ মটোরোলা অন্যান্য কোম্পানির সঙ্গে ১৮ মাসের চুক্তিতে আবদ্ধ ছিল। সেটা শেষ হওয়ার আগ পর্যন্ত মটোরোলা গুগলের অধীনে চলে গেলেও কার্যত গুগল মটোরোলাকে দিয়ে তেমন কিছু করতে পারার মতো অবস্থানে ছিল না।

পরে গুগল মটোরোলা মোবিলিটিকে লেনোভোর কাছে বিক্রি করে দেয়, কিন্তু সেটা আরেক ঘটনা।

একই ব্যাপার নোকিয়ার ক্ষেত্রেও প্রযোজ্য। নোকিয়া মাইক্রোসফটের অধীনে চলে যাওয়ার চুক্তি সম্পাদিত হলেও এখনও কার্যত মাইক্রোসফটের অধীনে নয় নোকিয়া। আর ঠিক এ কারণেই একটি স্বল্প সময়ের ‘জানালা’ রয়েছে নোকিয়ার হাতে। এই সময়টার মধ্যে জানালা দিয়ে ভক্তদের হাতে দিয়ে যেতে পারে তাদের ‘স্বপ্নের’ একটি নোকিয়া অ্যান্ড্রয়েড।

আর সেই পরিকল্পনা থেকেই নরম্যান্ডির যাত্রা শুরু।

শেষ সুযোগ

কোডনেম নরম্যান্ডি হলেও বেশ অনেকদিন ধরেই একে ‘নোকিয়া এক্স’ বলে সম্বোধন করা হচ্ছে। সবুজ রঙকে হাইলাইট করে নোকিয়া আগামী সপ্তাহে অনুষ্ঠেয় একটি প্রেস কনফারেন্সের আমন্ত্রণও ইতোমধ্যেই পাঠিয়ে দিয়েছে বিভিন্ন মিডিয়া হাউজে। আর সেই সবুজে ভরপুর নতুন ‘এক্স’ লোগোও ফাঁস হয়েছে সম্প্রতি, যা এই আর্টিকেলের উপরেই সংযোজিত রয়েছে। পাশাপাশি ফাঁস করে জনপ্রিয় হওয়া টুইটার অ্যাকাউন্ট ইভলিকস নোকিয়া এক্স-এর একটি মার্কেটিং গ্রাফিক্সও ফাঁস করেছে।

নোকিয়া এক্স

নোকিয়া এক্স কিন্তু হাই-এন্ড কোনো ডিভাইস না। এখন পর্যন্ত পাওয়া মোটামুটি নির্ভরযোগ্য তথ্য অনুসারে, এটি ৪ ইঞ্চি ডিসপ্লে, ৫১২ র‌্যাম ও মাত্র ৪ গিগাবাইট স্টোরেজের একটি ফোন যাতে কেবল ৫ মেগাপিক্সেলের ক্যামেরা দেয়া হচ্ছে। মাত্র ১০০ ডলারের কিছু বেশি দামে এই ফোন বিক্রি হবে বলে জানা গেছে।

নোকিয়া এক্স-এ অ্যান্ড্রয়েডের একটি ‘ফর্কড’ সংস্করণ ব্যবহৃত হচ্ছে, যেমনটা অ্যামাজন তাদের ‘কিন্ডল’ ট্যাবলেটে ব্যবহার করে থাকে। তবে এতে জনপ্রিয় প্রায় সব অ্যাপ্লিকেশনই চলবে। আসছে মোবাইল ওয়ার্ল্ড কংগ্রেসে ২৪শে ফেব্রুয়ারি নোকিয়া তাদের বহুল প্রতীক্ষিত ও ভক্তদের প্রত্যাশিত ফোন ‘নোকিয়া এক্স’ অবমুক্ত করবে বলে ধারণা করা হচ্ছে।

আর তাই অ্যান্ড্রয়েড জগতে এই মুহূর্তে ‘এক্স’ কোনো অজানা রাশি নয়।

নোকিয়া এক্স নিয়ে আপনার প্রত্যাশা কী?

  • Rezaul Rasel

    valO hole to kena jabe but onnanno phoner sathe compare korle jodi dekha jay pisiye ase tahole khub ekta sara pabe na

    • নোকিয়া হিসেবে পেতেও পারে।

  • Sajib Alam

    একটা কেনার পরিকল্পনা আছে 🙂

    • যদি এ প্রান্তে পাওয়া যায়, নাকি?

  • Jahir

    1st quarter er sell ta hobe company Nokia ei jonno. 2nd quarter er sell theke bojha jabe quality kemon